উইকিশৈশব:পাখপাখালির দেশে/কাক

পাতিকাক

কাক পক্ষী শ্রেণীর প্যাসেরিফর্ম বর্গের কর্ভিডি গোত্রের অন্তর্গত একজাতীয় পাখি। উষ্ণমন্ডলীয় সব মহাদেশ (দক্ষিণ আমেরিকা ব্যতীত) এবং বেশ কিছু দ্বীপ অঞ্চলে কাকের বিস্তার রয়েছে। কর্ভাস গণের মধ্যে প্রায় ৪০টি বিভিন্ন প্রজাতির কাক দেখা যায়। কর্ভিডি গোত্রের প্রায় এক-তৃতীয়াংশই বিভিন্ন প্রজাতির কাকে পূর্ণ। অধিকাংশ কাকের দেহবর্ণ কালো রঙের। কাকের উদ্ভব ঘটেছে মধ্য এশিয়ায়। সেখান থেকে এটি উত্তর আমেরিকা, আফ্রিকা, ইউরোপ এবং অস্ট্রেলিয়া মহাদেশে ছড়িয়ে পড়ে। বাংলায় কাক বলতে সাধারণত পাতিকাককে বোঝায়। এছাড়াও বাংলায় দাঁড়কাক পরিচিত।

কাককে পাখিজগতের সর্বাপেক্ষা বুদ্ধিমান পাখি বলে মনে করা হয়। শুধু তাই নয়, প্রাণীজগতের অন্যতম বুদ্ধিমান প্রাণী হিসেবে এদের গণ্য করা হয়।[১] আধুনিক গবেষণায় দেখা গিয়েছে, কাক যে কেবল যন্ত্রপাতি ব্যবহার করতে পারে তাই নয়, যন্ত্রপাতি নির্মাণেও এরা পারদর্শী।[২]

বিবরণসম্পাদনা

মাঝারি কাক দেখতে পাওয়া যায় যারা বিভিন্ন গোত্রে বিভক্ত। ছোট ৩৪ সেন্টিমিটার মেক্সিকান প্রজাতি থেকে শুরু করে ৬০-৭০ সেন্টি মিটার দীর্ঘ বড় পাতিকাক অবধি এর দৈহিক দৈর্ঘ্য হতে পারে। কাকের লিঙ্গ দ্বিরূপতা সীমাবদ্ধ, গুটি কয়েক প্রজাতির মধ্যে দেখা যায়। এদের গড় আয়ু পনের থেকে কুড়ি বছর, তবে আমেরিকান কাকের আয়ু ৩০ বছর।[৩]

খাদ্যাভ্যাসসম্পাদনা

কাক সর্বভুক প্রাণী, প্রজাতি পার্থক্যে তাদের খাদ্যাভ্যাসের কিছুটা পরিবর্তন হয়ে থাকে। তারা যা খুশি ভক্ষণ করে থাকে যেমন অন্য পাখির দেহাংশ, ফল, বাদাম, শামুক, কেঁচো, বীজ, ডিম, ইঁদুর ইত্যাদি। গৃহস্থালির বর্জ্য খাওয়ার কারণে কাককে ঝাড়ুদার পাখি বলা হয়। সাধারণত কাক কৃষিজমির পোকামাকড় খেয়ে থাকলেও কৃষিজ ফসলের যথেষ্ট পরিমাণ ক্ষতি করে।[৪]

চিত্রশালাসম্পাদনা

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. "A Murder of Crows"Nature। PBS video। ২০১০-১০-২৪। সংগ্রহের তারিখ ৬ ফেব্রুয়ারি ২০১১New research indicates that crows are among the brightest animals in the world. 
  2. Winkler, Robert (আগস্ট ৮, ২০০২)। "Crow Makes Wire Hook to Get Food"National Geographic। সংগ্রহের তারিখ ৬ ফেব্রুয়ারি ২০১১ 
  3. McGowan, K.J. "Frequently Asked Questions About Crows", Cornell Lab of Ornithology
  4. Crow Facts টেমপ্লেট:Webarchive. crowbusters.com