উইকিশৈশব ইউরোপ : সুইজারল্যান্ড


মানচিত্রে ইউরোপে সুইজারল্যান্ড (সবুজ) অবস্থান দেখানো হয়েছে

সুইজারল্যান্ড হল পশ্চিমা ইউরোপের একটি ছোট দেশ। এর সাথে জার্মানি, অষ্ট্রিয়া, ইতালি, ফ্রান্স and Liechtensteinর সীমান্তে রয়েছে। এর রাজধানী শহর বের্ন। অন্য বড় শহরগুলোর মধ্যে জেনেভা অন্যতম। সুইজারল্যান্ড ইউরোপীয় ইউনিয়নের সদস্য নয়। সুইজারল্যান্ডের মুদ্রার নাম সুইস ফ্রাঙ্ক.

সুইজারল্যান্ডের ইতিহাসসম্পাদনা

 
সুইজারল্যান্ডের জাতীয় পতাকা।

সুইজারল্যান্ডের নিরপেক্ষতার লম্বা ইতিহাস রয়েছে—১৮১৫ সালে থেকে এখানে কোন যুদ্ধ হয়নি— এবং রেড ক্রস, বিশ্ব বাণিজ্য সংস্থাসহ এখানে বহু আন্তর্জাতিক সংগঠন প্রতিষ্ঠিত হয়েছে। ১৯২০ সালে সুইজারল্যান্ড জাতিপুঞ্জের সদস্য হয় আর ১৯৬৩ সালে ইউরোপের কাউন্সিলে যোগ দেয়। বিশ্বযুদ্ধের সময় সুইজারল্যান্ড আক্রান্ত হয়নি। দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের সময় জার্মানি সুইজারল্যান্ড আক্রামণের পরিকল্পনা করলে তারা কোন প্রকারের আক্রমণ করিনি।

 

নিরপেক্ষতা — যখন কোন দেশ যুদ্ধে কোন পক্ষে অংশ নেয়না

 
সুয়েজ প্রদেশ,সুইজারল্যান্ড
 
সুইজ অ্যালপসে সূর্যাস্ত

সুইজারল্যান্ডের ভূগোলসম্পাদনা

সুইজারল্যান্ডের আয়তন প্রায় ৪১,২৮৫ বর্গকিলোমিটার (১৫,৯৪০ বর্গমাইল), সুইজারল্যান্ড একটি অপেক্ষাকৃত ছোট দেশ। এখানকার জনসংখ্যা প্রায় ৭.৫ মিলিয়ন (৭৫ লক্ষ)। সুইজারল্যান্ড ইউরোপের পাহাড়ী দেশগুলোর মধ্যে একটি। এর আয়তনে ৭০ শতাংশ ঘিরে রয়েছে অ্যালপস। সুইজারল্যান্ডের সবচেয়ে উঁচু পর্বতের নাম মন্টি রোজা গ্রীষ্মকালে গরম আর আদ্র থাকে। এই সময় পর্যায়ক্রমিকভাবে বৃষ্টি হয়। যার ফলে চারণভূমি আর গোচারণভূমির উপকার হয়। শীতকালে পর্বতগুলোতে বিকল্প রোদ্রের সাথে বরফ থাকে, যখন নিচের এলাকাজুড়ে মেঘলা আর কুয়াশার প্রবণতা দেখা যায়।

সুইজারল্যান্ডের মানুষসম্পাদনা

 
সাধু গলের মঠ , সেন্ট গলেন, সুইজারল্যান্ড

সুইজারল্যান্ডের জনসংখ্যা ৮ মিলিয়নের বেশি। রোমান ক্যাথলিক এখানে বেশি চর্চা করা ধর্ম। জনসংখ্যার ৪৫ শতাংশ মানুষ রোমান ক্যাথলিক ধর্মের চর্চা করে। বাকিরা মুসলমান, সনাতন খ্রিষ্টান, এবং ইহুদীরা নিজ নিজ ধর্ম চর্চা করে।

সুইজারল্যান্ড বহুভাষী রাষ্ট্র এবং এখানকার চারটি রাষ্ট্র ভাষা রয়েছে: জার্মান, ফরাসি, ইতালীয় এবং রোমানীয়। বাকিরা স্পেনীয়, পর্তুগিজ আর তুর্কীয় ভাষায় কথা বলে। সুইজারল্যান্ডের শিক্ষার হার ১০০ শতাংশ। ৫ থেকে ১৬ বছর বয়সে শিক্ষা বাধ্যতামূলক।

 

শিক্ষার হার — প্রাপ্ত বয়স্কদের লিখতে আর পড়তে পারার হার

অঅন্যান্য ইউরোপীয় দেশগুলোর মমত সসুইজারল্যান্ড ফুটবল ভক্ত এবং বিশ্বব্যাপী জাতীয় দল সমর্থন পায়। অনেক সুইজ বরফ হকির ভক্ত। গত কিছু বছরে রোগার ফেডেরের আরর মার্টিনা হাইনগিসের মত বেশকিছু টেনিস খেলয়াড় অনেকবার একক পর্যায়ে গ্রান্ড স্যালাম চ্যাম্পিয়ন হয়েছেন। বর্তমান বিশ্বের সেরা আইস স্কেটার মমধ্যে একজন হলেন সুইজ স্টেফানে ল্যামবিয়েল। সুইজারল্যান্ড সফল সেইলিং টিম আলিনঘির বাড়ি। এছাড়া অন্যান্য যেসকল খেলায় সুইজারল্যান্ড সফলতা পেয়েছে তার মধ্যে ফেনসিং, হোয়াইট ওয়াটার স্যালম, বরফের হকি, সমুদ্র সৈকতের ভলিবল।

সুইজারল্যান্ডের দর্শনীয় স্থানসম্পাদনা

পর্যটকরা সুইজারল্যান্ডের প্রকৃতি আর প্রাকৃতিক ভূদৃশ্যের জন্য আকৃষ্ট হয়। এছাড়া স্কিইং আর পর্বত ভ্রমণের জন্য এখানে অনেক পর্যটক আসে। এছাড়া সুইজারল্যান্ড আর তলতার প্রতিবেশী দেশগুলোর কর পার্থক্যের জন্য কেনাকাটার ভ্রমণের স্থান। বিশ্বের অন্যতম অর্থসংস্থান হওয়ায় এখানে বহু ভ্রমণকারী ব্যবসার জন্য আসে। সুইজারল্যান্ডে বার্নের পুরাতন শহর, সাধু গলের মঠ এবং এবং মন্টি স্যান জিওরজিও সহ ১১টি ইউনেস্কো ঐতিহ্যবাহী স্থান রয়েছে

  উইকিশৈশব ইউরোপসূচনাইইউ ভূগোললোকজনভাষাবিষয়কুইজ সম্পাদনা