উইকিশৈশব:সৌরজগৎ/ওর্ট ক্লাউড

Oort cloud Facts:
  • The Oort cloud is as far from the Sun as you can go without leaving the Solar System.
  • It is believed that most comets originate in the Oort cloud before "falling" toward the Sun.

ওর্ট মেঘ বা ওর্ট ক্লাউড হচ্ছে লক্ষ লক্ষ ধূমকেতু-জাতীয় বস্তু দিয়ে তৈরি একটি বিশাল বলয় যা সৌরজগতের সবচেয়ে বাইরের প্রান্তে অবস্থিত।

ওর্ট ক্লাউড কী?সম্পাদনা

বিজ্ঞানীরা বলছেন, সৌরজগতের প্রান্তে পাথর ও বরফ দিয়ে তৈরি একদল বস্তু রয়েছে, যা আমাদের সৌরজগতের চারপাশে মেঘের মতো একটি অঞ্চল গঠন করে। এটি মূলত সূর্য থেকে বহু দূরে প্রদক্ষিণ কারী ধূমকেতুর মতো বস্তুর মেঘ। যদিও এসব ধূমকেতু একে অপরের তুলনায় বেশ দূরত্ব রেখেই ব্যাপকভাবে ছড়িয়ে ছিটিয়ে রয়েছে, তবে সেখানে তাদের সংখ্যা লক্ষ লক্ষ। এই সমস্ত ধূমকেতুর মোট ভর পৃথিবীর ভরের ১০০ গুণ পর্যন্ত হতে পারে। ওর্ট ক্লাউডের নামকরণ করা হয়েছে একজন ডাচ জ্যোতির্বিজ্ঞানী জ্যান ওর্টের নামানুসারে। তিনিই মূলত এই ধারণাটি উত্থাপন করেন। এছাড়াও তিনিই এই ধারণা উন্নতিতে ও ধারণাটিকে ব্যাপকভাবে পরিচিত করতে ভূমিকা পালন করেছেন।

 
এই চিত্রটি সৌরজগতের গ্রহগুলির সাথে ওর্ট মেঘকে কত দূরে তুলনা করা যেতে পারে সে সম্পর্কে দেখায়। উপরের বাম ফ্রেমে শুরু করুন, তারপর ঘড়ির কাঁটার দিকে ছবিগুলি অনুসরণ করুন। প্রতিটি ছবিতে স্থানের একটি বড় আয়তন দেখানো হয়েছে।

কোনো ধূমকেতু সৌরজগতের মধ্য দিয়ে বেশ কয়েকবার অতিক্রম করার সাথে সাথে সূর্যের তাপে ধীরে ধীরে এই বস্তুতে থাকা বরফ গলে গিয়ে বাষ্পীভূত হয়ে যায়। এর ফলে কেবল সেসব বস্তুর কঠিন ধ্বংসাবশেষের সামান্য অংশই অবশিষ্ট থাকে। কিন্তু ধূমকেতুগুলো যদি সৌরজগতের মধ্য দিয়ে যাওয়ার সময় যদি পুরোপুরি ধ্বংস হয়ে যায়, তাহলে আর কখনোই সেই ধূমকেতুর আবির্ভাব হবে না। বরং নতুন কোনো ধূমকেতু উপস্থিত হবে। অন্যথায় আমরা আর কোনও ধূমকেতু দেখতে পাব না। ধূমকেতু পুরোপুরি ধ্বংস হয়ে যাওয়ার পরেও "কেন নতুন ধূমকেতু্র আবির্ভাব হয়ে থাকে" তা ব্যাখ্যা করতে জ্যান ওর্ট এই ওর্ট মেঘের ধারণাটি ব্যবহার করেছিলেন।

ওর্ট ক্লাউড কোথায় অবস্থিত?সম্পাদনা

আপনি যদি পৃথিবী থেকে সূর্যের দূরত্ব কল্পনা করতে পারেন, তাহলে ওর্ট মেঘের ধূমকেতুগুলো এর চেয়ে আরও ৫০,০০০ থেকে ১,০০,০০০ গুণ দূরে! এটি সূর্য ও প্লুটোর মধ্যবর্তী দূরত্ব থেকেও ১,০০০ গুণ দূরে এবং আমদের নিকটতম প্রতিবেশী নক্ষত্র প্রক্সিমা সেন্টৌরির দূরত্বের প্রায় এক চতুর্থাংশ দূরে অবস্থিত। সূর্য থেকে ওর্ট মেঘের বাইরের প্রান্তে যেতে আলো এক বছর সময় নেয়।

 
সৌরজগৎ

ভূমিকা
আমাদের সৌরজগৎ
সূর্য
বুধ
শুক্র
পৃথিবী
চাঁদ
মঙ্গল
গ্রহাণুপুঞ্জ
বৃহস্পতি
শনি
ইউরেনাস
নেপচুন
প্লুটো
ধূমকেতু
কুইপার বেষ্টনী
উর্ট মেঘ
পরিভাষাকোষ
পরীক্ষা

ওর্ট ক্লাউড কীভাবে গঠিত হয়েছিল?সম্পাদনা

সৌরজগতের গঠনের সময় ওর্ট মেঘের বস্তুগুলো সূর্যের কাছাকাছিই গঠিত হয়েছিল বলে মনে করা হয়। যখন তারা গ্যাসীয় দৈত্যের কাছে দিয়ে যায়, তখন সেই গ্রহগুলোর মাধ্যাকর্ষণের ফলে এই বস্তুগুলো খুব দূরবর্তী কক্ষপথে নিক্ষিপ্ত হয়। ওর্ট ক্লাউডের এসব বস্তুগুলো সব দিকেই নিক্ষিপ্ত হয়েছিল। এর ফলে ওর্ট ক্লাউড অঞ্চলটি চাকতি-আকৃতির পরিবর্তে গোলক-আকৃতিতে পরিণত হয়। অতিক্রমকারী নক্ষত্রগুলোর মাধ্যাকর্ষণ এই বস্তুগুলোর কক্ষপথগুলোকে আরও বৃত্তাকার করে তোলে এবং সূর্য থেকে তাদের আরও দূরে টেনে নিয়ে যায়। তবে কখনও কখনও অন্যান্য দূরবর্তী নক্ষত্রগুলোর মাধ্যাকর্ষণ এসব বস্তুকে সূর্যের দিকে ঠেলে দিতে পারে। এগুলো সূর্যের কাছে এসে ধূমকেতুতে পরিণত হয়।

ওর্ট ক্লাউডে কী বস্তু রয়েছে?সম্পাদনা

সেডনা নামের একটি বস্তু আবিষ্কৃত হয়েছে যা ওর্ট ক্লাউডের অন্তর্গত হতে পারে বলে মনে করা হয় (যদিও এটি আসলে কুইপার বেষ্টনী ও ওর্ট ক্লাউডের মধ্যবর্তী কোনো অংশের বস্তু।) বস্তুটি ১,১৮০ থেকে ১,৮০০ কিলোমিটার জুড়ে অবস্থিত। এর কক্ষপথ পৃথিবীর চেয়ে সূর্য থেকে ৭৬ থেকে ৯২৮ গুণ বেশি প্রসারিত। সেডনা প্রায় প্রতি ১১,২৫০ বছরে একবার সূর্যকে প্রদক্ষিণ করে। শেষবার যখন সেডনা তার কক্ষপথের বর্তমান অবস্থানে ছিল, তখন পৃথিবীর সর্বশেষ বরফ যুগের সমাপ্তি হচ্ছিল! কিছু বিজ্ঞানী মনে করেন যে সেডনাকে কুইপার বেল্টে অন্তর্ভুক্ত করা উচিত। এই মতের দ্বারা কুইপার বেল্টেকে আরও বড় হিসেবে গণ্য করা হয়। ত

Next Page: Glossary