Saturn symbol (bold, blue).svg শনি বিষয়ক তথ্য:

  • যদি তুমি বিশাল বড় কোন বাথটাব পাও তবে শনি গ্রহ সেই বাথটাবে ভেসে থাকতে সক্ষম।
  • শনির কিছু উপগ্রহ এটির বলয়কে নিয়ন্ত্রণ করে থাকে। এইগুলিকে শেফার্ড মুন বা যাজক উপগ্রহ বলা হয়ে থাকে।
  • যদিও শনি মূলত বায়বীয় উপাদান দ্বারা নির্মিত, কিছু কিছু বিজ্ঞানী মনে করে থাকেন শনির ক্ষুদ্র শিলাময় কেন্দ্র রয়েছে।

শনিগ্রহ সৌরজগতের সূর্য থেকে দূরত্ব অনুযায়ী গ্রহ এবং অন্যতম গ্যাস জায়েন্ট

সৌরজগৎ

ভূমিকা
আমাদের সৌরজগৎ
সূর্য
বুধ
শুক্র
পৃথিবী
চাঁদ
মঙ্গল
গ্রহাণুপুঞ্জ
বৃহস্পতি
শনি
ইউরেনাস
নেপচুন
প্লুটো
ধূমকেতু
কুইপার বেষ্টনী
উর্ট মেঘ
পরিভাষাকোষ
পরীক্ষা

শনিগ্রহ কত বড়?সম্পাদনা

 
পৃথিবীর সাপেক্ষে শনির আকারের তুলনা

শনির ব্যাস ১,২০,৫৩৬ কিলোমিটার দীর্ঘ তথা পৃথিবীর নিরক্ষীয় ব্যাসের ৯.৪৪৯ গুন।‌ [১]

শনিগ্রহের পৃষ্ঠতল কীরকম?সম্পাদনা

শনি গ্যাসীয় (বা বায়বীয়) এবং জলীয় উপাদান দ্বারা নির্মিত।[২] শনির ক্ষুদ্রতর কেন্দ্রক ও বরফের উপস্থিতি থাকলেও থাকতে পারে।[৩] এর পরিবেশে একাধিক বলয় রয়েছে কিন্তু সেগুলির ক্ষেত্রে বৃহস্পতির মতো এতটা রংয়ের বৈচিত্র দেখতে পাওয়া যায় না।

শনিগ্রহের বলয় কীরকম?সম্পাদনা

 
বলয়ের ওপর শনির ছায়া

শনির বলয় পাথর এবং বরফ কণা দ্বারা নির্মিত, এই কণাগুলির আকার কাঁচের কুচির আকার থেকে‌ শুরু করে বড় কোন বাড়ির আকার পর্যন্ত হতে পারে। আবার স্বল্প কিছু কণার দৈর্ঘ্য কিছু কিলোমিটার প্রশস্তও রয়েছে। বলয়ের উপস্থিতিতেই কণাগুলি নিজেদের থেকে যথেষ্ট দূরবর্তী অবস্থানে রয়েছে। শুধু তাই নয়, বাধাহীনভাবে এই বলয় অতিক্রম করা কষ্ট সাধ্য নয়।[৪]

শনিগ্রহের উপগ্রহগুলি কীরকম?সম্পাদনা

 
শনির শৃঙ্খলের মানচিত্র (নাসা)

শনির ৫৬ টি উপগ্রহ রয়েছে এবং অধিকাংশেরই আলাদা আলাদা নাম রয়েছে।[৫] শনির উপগ্রহ সমূহের আকার এবং এর বলয়ে উপস্থিত বরফের চাঁইয়ের আকার সমতুল্য, যার অর্থ আমরা কখনই শনির উপগ্রহের সঠিক সংখ্যা জানতে পারবো না। [৬] নতুন উপগ্রহ এখনো আবিষ্কার হয়ে চলেছে। শনির এখনো অবধি আবিষ্কৃত বৃহত্তম উপগ্রহটি হল টাইটান। টাইটানে আকার এতটাই বড় যে এটি নিজেই একটি গ্রহের অনুরূপ!

যাজক উপগ্রহসম্পাদনা

শনির বলয়ের মধ্যে বা কাছাকাছি অবস্থানে রয়েছে আলুর আকৃতির ছোট কিছু উপগ্রহ। এগুলি বলয়ের ক্ষুদ্রাতিক্ষুদ্র ধূলিকণা বা পাথরখণ্ডকে নিজেদের মাধ্যাকর্ষণ শক্তির মাধ্যমে নিয়ন্ত্রণ করে। এজন্যই এগুলি যাজক উপগ্রহ বা শেফার্ড মুন নামে পরিচিত। এগুলির মধ্যে ছয়টি কে এখন অবধি আবিষ্কৃত করা গিয়েছে, এ ব্যতীত আরও থাকলেও থাকতে পারে।[৭]

মিমাসসম্পাদনা

মিমাস মূলত বরফ ও জল দ্বারা তৈরি এবং কেন্দ্রকে সামান্য পরিমাণ শিলাময় বস্তু রয়েছে।[৮] এতে একটি বড় গর্ত ক্রেটার রয়েছে যা হার্শেল নামে পরিচিত। এর দৈর্ঘ্য ১৩০ কিলোমিটার যা মিমাসের এক তৃতীয়াংশ।[৯] এই উপগ্রহে অবস্থিত গর্ত দেখে স্টার ওয়ারস মুভির মৃত নক্ষত্র বলে মনে হতে পারে।

এনসেলাডাসসম্পাদনা

এনসেলাডাস বরফ দিয়ে তৈরি। এটি অন্যান্য সমস্ত বরফ উপগ্রহ থেকে ঘনতর। যার অর্থনীতির কেন্দ্রকেও শিলাময় বস্তু রয়েছে।[১০] এর পৃষ্ঠতল সমতল হলেও রয়েছে কিছু গর্ত ও খাঁজ। মসৃণ অঞ্চল নতুন সৃষ্ট। বিগত ১০০ মিলিয়ন বছরে বহু গর্ত ও খাঁজ মসৃণ হয়ে গিয়েছে। দক্ষিণ মেরুর দিকে মসৃণ এলাকায় জলীয়বাষ্প পাওয়া গিয়েছে। খাড়াই এবং খাঁজের উপস্থিতি প্রমাণ করে এটিরও গেনিমিডের মতো পাত সংস্থান রয়েছে। ইউরোপার মতো কিছু শৈলশৃঙ্গ পাওয়া গিয়েছে। এর অর্থ ইউরোপার মতো এনসেলাডাসেও সমুদ্র থাকার সম্ভাবনা রয়েছে।[১১] ডিওনের মহাকর্ষ বল ভূমিরূপের এইরূপ গঠন তৈরি হবার পেছনে দায়ী হতে পারে। এটি শনি ও ডিওনকে সম দূরত্বে টেনে রেখেছে। এই বল ইউরোপা ও গ্যানিমিডের আইয়োর ওপর প্রযুক্ত বলের অনুরূপ যা আইয়োর আগ্নেয় কার্যবিধি কর্তৃত্ব করে।[১২]

টেথিসসম্পাদনা

টেথিস হল একটি বরফের উপগ্রহ যাতে রয়েছে অমসৃণ গর্ত এবং একটি বৃহৎ আকৃতি ওডিসিয়াস। এর বিস্তার ৪০০ কিলোমিটার তথা টেথিসের নিজের আকারের এক পঞ্চমাংশ। তবে এর গর্ত গুলি প্রায় মসৃণ রূপ ধারণ করেছে কারণ পাথরে কোন আকার যত সময় স্থায়ী হয় বরফের ক্ষেত্রে সেই স্থায়িত্ব খুবই কম। এতে রয়েছে ইথাকা চসমা‌ নামে একটি বড় উপত্যকা অঞ্চল। এটি ৩ থেকে ৫ কিলো মিটার গভীর ১০০ কিলোমিটার প্রশস্ত এবং ২,০০০ কিলোমিটার দীর্ঘ। এর বিস্তৃতি টেথিসের তিন-চতুর্থাংশ অঞ্চল জুড়ে।[১৩]

দুটি অন্য উপগ্রহ টেলেস্টো ও ক্যালিপসো টেথিসের কক্ষপথেই প্রদক্ষিণ করে। টেলেস্টো থাকে টেথিসের আগে এবং ক্যালিপসো থাকে টেথিসের পেছনে।[১৪]

ডিওনসম্পাদনা

ডিওন প্রচুর পরিমাণে বরফ দিয়ে তৈরি এছাড়া এর কেন্দ্রকে শিলাময় বস্তুর অবস্থান করার সম্ভাবনা রয়েছে। এতে প্রচুর পরিমাণে গর্ত রয়েছে। তবে এর গর্ত গুলি প্রায় মসৃণ রূপ ধারণ করেছে কারণ পাথরে কোন আকার যত সময় স্থায়ী হয় বরফের ক্ষেত্রে সেই স্থায়িত্ব খুবই কম। একদিকে রয়েছে উজ্জ্বল সাদা রংয়ের দাগ এবং ভাঙ্গা চিহ্ন। দুটি অন্য উপগ্রহ ডিওনের কক্ষপথে প্রদক্ষিণ করে। হেলিন থাকে ডিওনের আগে এবং পলিডিউসেস থাকে ডিওনের পেছনে।[১৫]

রিয়াসম্পাদনা

রিয়া ডিওনের মতোই একটি বরফ সংকুল উপগ্রহ যার কেন্দ্রকে রয়েছে শিলাময় বস্তু। এর একদিকে রয়েছে প্রচুর গর্ত এবং অপরদিকটি উজ্জল এবং বরফের মত সাদা পৃষ্ঠতল।[১৬]

টাইটানসম্পাদনা

টাইটান শনির বৃহত্তম এবং সমগ্র সৌরজগতের দ্বিতীয় বৃহত্তম উপগ্রহ।[১৭] সৌরজগতের একমাত্র এই উপগ্রহতেই ঘন আবহাওয়ার উপস্থিতি পাওয়া গিয়েছে। এর পরিবেশে রয়েছে নাইট্রোজেন, আর্গন, মিথেন এবং আরও অন্যান্য জৈব রাসায়নিক পদার্থ[১৮] এর পৃষ্ঠতলে রয়েছে আলো ও অন্ধকারাচ্ছন্ন স্থান এবং সামান্য কিছু গর্ত। ক্যাসিনি প্রোব টাইটানে ৪৪০ কিলোমিটার প্রশস্ত একটি বড় গর্ত পেয়েছে।[১৯]

হাইপেরিয়নসম্পাদনা

হাইপেরিয়ন জল বরফে এবং সামান্য পরিমাণ পাথুরে বস্তু দিয়ে তৈরি। এটি আলুর আকৃতির। অন্যান্য উপগ্রহ যেমন নির্দিষ্ট কক্ষপথে প্রদক্ষিণ করে হাইপেরিয়ন কিন্তু এর বদলে লাফিয়ে লাফিয়ে স্থান পরিবর্তন করে।[২০]

অ্যাপেটাসসম্পাদনা

অ্যাপেটাস প্রায় পুরোপুরি ভাবে বরফ দ্বারা তৈরি।[২১] এতে একটি আলোকিত অঞ্চল আছে যা গর্তময়, এটি রনসিভোক্স টেরা নামে পরিচিত।[২২] আবার গাঢ় রঙের অন্ধকারাচ্ছন্ন বৃহৎ অংশটি ক্যাসিনি রেজিও নামে পরিচিত, যা অ্যাপেটাসের অর্ধেক ক্ষেত্রফল জুড়ে বিস্তৃত। অন্ধকারাচ্ছন্ন দিক ফোবের জন্য হতে পারে। কিছু অন্ধকারাচ্ছন্ন ক্ষেত্র গর্তের নিচের অংশ। ক্যাসিনি প্রোব দ্বারা ক্যাসিনি রেজিওতে কিছু বৃহদাকৃতির গর্ত এবং শৈলশিরা দেখতে পাওয়া গিয়েছে। শৈলশিরার নিরক্ষীয় অঞ্চল বরাবর ১,৩০০ কিলোমিটার অঞ্চল জুড়ে বিস্তৃত। এর উচ্চতা সর্বাধিক ২০ কিলোমিটার যার মাউন্ট এভারেস্টের ২.২৬ গুন। [২৩] ক্যাসিনি পুনরায় অ্যাপেটাসে গেলে এর চেয়েও বড় গর্ত পাওয়া যায় রনসিভোক্স টেরা অঞ্চলে।[২৪]

ফোবেসম্পাদনা

ফোবে বরফ এবং শিলাময় বস্তু দ্বারা তৈরি। এর বহির্গাত্রে গাঢ় পদার্থের উপস্থিতির কারণে এটিকে বাইরে থেকে অন্ধকারাচ্ছন্ন দেখায়। এর পৃষ্ঠতল অমসৃণ।[২৫]

অন্যান্য উপগ্রহসম্পাদনা

শনির উপগ্রহ গুলির মধ্যে দুইটি ছোট বহিরুপগ্রহ শ্রেণি রয়েছে। ফোবে দ্বিতীয় বহিরুপগ্রহ শ্রেণির অন্তর্ভুক্ত।[২৬]

শনিগ্রহের একদিনের দৈর্ঘ্য কত?সম্পাদনা

পৃথিবীর সময় সাপেক্ষে শনির একটি দিনের দৈর্ঘ্য প্রায় ১০ ঘন্টা ৩৯ মিনিট।[২৭]

শনিগ্রহে এক বছরের ব্যপ্তি কত?সম্পাদনা

শনি সূর্যকে একবার প্রদক্ষিণ করতে পৃথিবীর সময় অনুসারে ১০,৭৬০ দিন বা ২৯.৪৬ বছর সময় অতিবাহিত করে![২৮]

শনিগ্রহ কী দিয়ে তৈরি?সম্পাদনা

শনির শিলাময় কেন্দ্রক রয়েছে। কেন্দ্রকের চারিদিকে রয়েছে বরফের আস্তরণ। বরফের স্তরের উপরিতলে রয়েছে তরল ধাতব হাইড্রোজেন। তার উপরের স্তরে রয়েছে গ্যাসীয় হাইড্রোজেন। এ দুটি স্তর নিজেদের মধ্যে উপরিপাতিত এবং এমন কোনো নির্দিষ্ট রেখা নির্ধারিত করা সম্ভব না যেই রেখা তরল হাইড্রোজেন এবং গ্যাসীয় হাইড্রোজে কে বিভাজিত করে।

শনির আবহাওয়ার সিংহভাগ অংশজুড়ে রয়েছে গ্যাসীয় হাইড্রোজেন। অন্যান্য গ্যাসের মধ্যে রয়েছে নিষ্ক্রিয় হিলিয়াম গ্যাস এবং আরও অন্যান্য। গ্যাসীয় হাইড্রোজেনের মাঝে হিলিয়াম বৃষ্টি হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। এছাড়াও গ্রহের পৃষ্ঠতলের রয়েছে অ্যামোনিয়া।[২৯]

শনিগ্রহের মাধ্যাকর্ষণ আমার উপর কত পরিমাণ অভিকর্ষজ বল দেবে?সম্পাদনা

যদি কেউ বৃহস্পতির মেঘাচ্ছন্ন পরিবেশের উপর ভাসমান অবস্থায় থাকেন তবে গ্রহটি তাকে তার কেন্দ্রের দিকে পৃথিবীর মাধ্যাকর্ষণ শক্তির সামান্য বেশি বল প্রয়োগ করবে।[৩০] শনির তুলনামূলক বড় ব্যাসার্ধ এটির কম ভর-আয়তন অনুপাত উভয় প্রশমিত হয়ে যাওয়ার কারণে কম ব্যাসার্ধ ও অধিক ভর বিশিষ্ট পৃথিবীর মাধ্যাকর্ষণ শক্তি ও শনির মাধ্যাকর্ষণ শক্তি প্রায় সমান। পৃথিবীতে যদি কারো ওজন ১০০ পাউন্ড হয় তবে শনিতে তার ওজন হবে ১০৬ পাউন্ড।

এটি কার নামে নামাঙ্কিত?সম্পাদনা

শনির ইংরেজি নাম স্যাটার্ন রোমের কৃষি কাজ এবং ফলনের দেবতার নামে নামাঙ্কিত। তিনি মানুষকে কিভাবে খুশি করতে হয় তা শেখান। তিনি বৃহস্পতির পিতা, তার নামেই ইংরেজি স্যাটারডে।[৩১]


পরবর্তী বিষয়: ইউরেনাস

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. http://www.nineplanets.org/saturn.html; http://nssdc.gsfc.nasa.gov/planetary/factsheet/saturnfact.html
  2. http://solarsystem.nasa.gov/planets/profile.cfm?Object=Saturn&Display=OverviewLong
  3. http://solarsystem.nasa.gov/multimedia/display.cfm?IM_ID=166
  4. http://www.nineplanets.org/saturn.html; http://www.solarviews.com/eng/saturnrings.htm; http://solarsystem.nasa.gov/planets/profile.cfm?Object=Saturn&Display=Rings
  5. http://www.nineplanets.org/saturn.html
  6. http://www.factmonster.com/ce6/sci/A0860937.html
  7. http://saturn.jpl.nasa.gov/faq/saturn.cfm#q13
  8. http://www.nineplanets.org/mimas.html
  9. http://www.nineplanets.org/mimas.html
  10. http://saturn.jpl.nasa.gov/multimedia/products/pdfs/20050830_CHARM_Esposito.pdf; http://www.ifa.hawaii.edu/faculty/jewitt/kb/phoebe.html
  11. http://www.nineplanets.org/enceladus.html; http://www.nasa.gov/home/hqnews/2005/jul/HQ_05208_cassini_watery_world.html;
  12. http://www.bbc.co.uk/science/space/solarsystem/saturn/enceladus.shtml; http://www.spacedaily.com/news/cassini-01e3.html
  13. http://www.nineplanets.org/tethys.html
  14. http://apod.gsfc.nasa.gov/apod/ap020519.html
  15. http://www.nineplanets.org/dione.html; http://solarsystem.nasa.gov/planets/profile.cfm?Object=Dione; http://solarsystem.nasa.gov/planets/profile.cfm?Object=Sat_Polydeuces
  16. http://www.nineplanets.org/rhea.html; http://solarsystem.nasa.gov/planets/profile.cfm?Object=Sat_Rhea
  17. http://www.nineplanets.org/titan.html; http://solarsystem.nasa.gov/planets/profile.cfm?Object=Sat_Titan
  18. http://www.nineplanets.org/titan.html; http://solarsystem.nasa.gov/planets/profile.cfm?Object=Sat_Titan
  19. http://www.nineplanets.org/titan.html; http://www.nasa.gov/mission_pages/cassini/media/cassini-021605.html
  20. http://www.nineplanets.org/hyperion.html
  21. http://www.nineplanets.org/iapetus.html
  22. http://www.seasky.org/solarsystem/sky3g8.html
  23. http://www.solarviews.com/cap/pia/PIA06166.htm; http://www.solarviews.com/eng/iapetus.htm; http://www.nineplanets.org/iapetus.html; http://antwrp.gsfc.nasa.gov/apod/ap030831.html
  24. http://saturn.jpl.nasa.gov/multimedia/images/image-details.cfm?imageID=2763
  25. http://www.solarviews.com/eng/phoebe.htm
  26. http://www.factmonster.com/ce6/sci/A0860937.html
  27. http://solarsystem.nasa.gov/planets/profile.cfm?Object=Saturn&Display=Facts&System=Metric
  28. http://nssdc.gsfc.nasa.gov/planetary/factsheet/saturnfact.html
  29. http://www.nineplanets.org/saturn.html; http://www.solarviews.com/eng/saturn.htm; http://www.seasky.org/solarsystem/sky3g1.html
  30. http://nssdc.gsfc.nasa.gov/planetary/factsheet/saturnfact.html
  31. http://www.pantheon.org/articles/s/saturn.html; http://coolcosmos.ipac.caltech.edu/cosmic_kids/AskKids/saturn_name.shtml